স্বাধীনতার ৪৫ বছরেও স্বীকৃতি পাননি দাগনভূঞার মুক্তিযোদ্ধা ফয়েজ

৯৮৩    0

foyez
স্বাধীনতার ৪৫ বছর অতিবাহিত হলেও দাগনভূঞা উপজেলার ইয়াকুবপুর ইউনিয়নের এনায়েতপুর গ্রামের প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা ফয়েজ আহাম্মেদ ভূঁইয়া আজো স্বীকৃতি পাননি। ফলে মুক্তিযোদ্ধা সম্মানি ভাতা বঞ্ছিত তার বিধবা স্ত্রী জোৎ¯œা আরা বেগম (৬০)। চাকুরী কৌটাসহ অন্যান্য সুবিধাদি ভোগেরও সৌভাগ্য হয়নি তার অনাথ সন্তান ও নাতী-নাতনীদের।

সংশ্লিষ্ট সূত্র ও মুক্তিযোদ্ধার পরিবার জানায়, মুক্তিযোদ্ধা ফয়েজ আহাম্মদ ভূঁইয়া ভারতের মেলাঘরে প্রশিক্ষণ শেষে ২ নং সেক্টরের নিয়ন্ত্রনাধীন নোয়াখালী জেলার বিভিন্ন গ্রামে যুদ্ধকালীন কমান্ডার রুহুল আমিন ভূঁইয়ার নেতৃত্বে যুদ্ধে অংশ নিয়ে পতাকা ছিনিয়ে আনেন পাক হানাদারের কবল থেকে। যার অনুকূলে ১৯৭২ সনের ৭ জানুয়ারী মুক্তি বাহিনী’র নোয়াখালী জেলা কমান্ডার আবু সাইদ স্বাক্ষরিত প্রত্যয়নপত্রও সংরক্ষনে রয়েছে। অথচ না পেয়েছেন তিনি মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি ও তার স্ত্রী-সন্তানরা সরকারের দেয়া সুযোগ-সুবিধাদিও পাচ্ছে না।

সমাজসেবা অধিদপ্তরের উপজেলা কার্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলা সমাজসেবা অধিদপ্তরের খসড়া মুক্তিবার্তা ও বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের চূড়ান্ত মুক্তিবার্তায় ০২১১০৪০১৬৪ নং ক্রমিকে ফয়েজ আহাম্মেদ ভূঁইয়া, পিতা- মৃত নজির আহম্মদ ভূঁইয়া, জাফর আলী ভূইয়া বাড়ী, গ্রাম-এনায়েতপুর (৭ নং ওয়ার্ড), ৫নং ইয়াকুবপুর ইউনিয়ন, উপজেলা-দাগনভূঞা, জেলা-ফেনীর নামে হুবহু মিল পাওয়া গেছে। যা এ মুক্তিযোদ্ধার প্রকৃত ঠিকানা। অন্যদিকে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের চূড়ান্ত তালিকায় ইউনিয়ন চকে ইয়াকুবপুর ইউনিয়নের স্থলে সিলোনীয়া (৮নং জায়লস্কর) প্রিন্ট হওয়ায় সরকারের দেয়া ভাতা ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্ছিত হয়েছেন এ মুক্তিযোদ্ধা ও তার পরিবার।

এ প্রসঙ্গে মুক্তিযোদ্ধা ফয়েজ আহাম্মদ ভূঁইয়া’র বিধবা স্ত্রী জোৎ¯œা আরা বেগমের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি এ প্রতিবেদককে জানান, পতাকা চিনিয়ে আনলেও আমার স্বামী মুক্তিযোদ্ধা স্বীকৃতি না পাওয়ায় মুক্তিযোদ্ধার পরিবার হিসেবে আমরা গর্ববোধ করতে দ্বিধা করি। আর বঞ্চিত সুযোগ-সুবিধার কথা নাইবা ভাবলাম।

উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা হোসনে আরা চৌধুরী বলেন, এ উপজেলার ৩শ’ মুক্তিযোদ্ধা ভাতা পান। তাছাড়া অন্তত ২৫ জন ভাতার আবেদন করেছেন। এর বাইরে কোন আবেদন পেলে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave A Reply