সেলিম আল দীনের ওয়ার্ল্ড কালচারাল সেন্টারের স্বপ্ন বাস্তবায়িত হয়নি

৯১৪    0

প্রতি বছরই কিছু সংগঠন বাংলা নাটকের খ্যাতিমান লেখক সেলিম আল দীনের জন্ম ও মৃত্যুবার্ষিকী স্বল্প পরিসরে পালন করে থাকেন।

কিন্তু নিজ জন্মভূমিতে তিনি যে ওয়ার্ল্ড কালচারাল সেন্টারের স্বপ্ন দেখেছিলেন তা এখানো বাস্তবায়িত হয়নি। প্রথা ভাঙার যে সাহস ও যোগ্যতা তিনি দেখিয়েছিলেন, তা শুধু স্মৃতিচারণ ও বার্ষিক অনুষ্ঠানেই সীমাবদ্ধ রয়েছে।

ফেনীর নাট্য সংগঠনগুলোতেও চর্চা হয় না ‘সেলিম আল দীন’। ফেনীতে তার নাটকগুলোর মধ্যে মঞ্চস্থ হয়েছে কেবলমাত্র একটি।

শৈশব ও কৈশোর তিনি ফেনীতে কাটালেও দীর্ঘদিন ফেনীর সঙ্গে তার কোনো যোগাযোগ ছিল না। তবে মৃত্যুর দু’বছর আগে ২০০৬ সালে ফেনীতে আসেন সেলিম আল দীন। ফেনীর সাংস্কৃতিক সংগঠন ও সংস্কৃতিকর্মীদের সঙ্গে তার নতুন করে যোগাযোগ হয়। সেসময় সংস্কৃতিকর্মী ও সংগঠনগুলোর অনুপ্রেরণা হয়ে ওঠেন তিনি। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তার সঙ্গে ফেনীর সংস্কৃতিকর্মী ও সংগঠনের যোগাযোগ  ছিল।

মৃত্যুর কিছুদিন আগে (২৮ ডিসেম্বর) ফেনীতে কবি শাবিহ মাহমুদের কদলগাজী রোডের বাসায় কবি মনজুর তাজিম, তরুণ নাট্যকর্মী ফরিদ মাঝি, তার ভাতিজা কুদরত ই খুদা পিকাসো, কবি তানিম কবির, আদিত্য আরাফাত ও রুদ্র হকসহ ফেনী সাহিত্য সংসদের তরুণ কবিদের সঙ্গে একটি সভায় মিলিত হয়েছিলেন সেলিম আল দীন। সে সভায় কবি শাবিহ মাহমুদকে তিনি ওয়ার্ল্ড কালচারাল সেন্টার ফেনী শাখার সমন্বয়কের দায়িত্ব অর্পণ করেছিলেন। তার ইচ্ছা ছিল ফেনীতে এ কার্যক্রমের একটি দৃষ্টান্ত স্থাপন করে ঢাকায় এর আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়ে এ সেন্টারের কার্যক্রম শুরু করবেন।

তার মৃত্যুর পরের বছর ২০০৯ সালের ১৮ আগস্ট ফেনীর সোনাগাজীর সেনেরখিলে পালিত হয় তার জন্মবার্ষিকী। এরপর জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের উদ্যোগে বিলুপ্ত জহির রায়হান হল প্রাঙ্গণে অর্জুনতলায় একটি স্মরণ সভার আয়োজন করা হয়। এরপর থেকে ফেনীর সাংস্কৃতিক অঙ্গণে ম্লান, হয়ে ওঠেন সেলিম আল দীন।

ফেনীতে যেন সেলিম আল দীনের নাটক ও গবেষণা কর্মের প্রসার পায় তার জন্য প্রতি বছর ফেনীতে একটি মেলা আয়োজনের উদ্যোগ নিতে চেষ্টা করা হলে বিষয়টিও ধামাচাপা পড়ে যায়। প্রশাসনসহ, বিভিন্ন গুণী ব্যক্তিবর্গ মেলা আয়োজনের আশ্বাস দিলেও তা বাস্তবে আলোর মুখ দেখেনি।

তার প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীতে গ্রামের বাড়িতে আয়োজিত এক শোকসভায় উপস্থিত ছিলেন নাট্য ব্যক্তিত্ব নাসির উদ্দিন ইউসুফ। ওই শোকসভা শেষে তিনি তার বাড়ির আঙিনায় সেলিম আল দীন জাদুঘরের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন। সেই ভিত্তি স্থাপনের ৯ বছর পেরিয়ে গেলেও আর কোন অগ্রগতি হয়নি।

ড. সেলিম আল দীনের ভাতিজা কুদরত ই খোদা পিকাসো বলেন, বাংলাদেশের এ খ্যাতিমান নাট্যাক‍ারের নামে ফেনীতে একটি স্মৃতি জাদুঘর গড়ে তোলা দরকার।

Leave A Reply